পাস হচ্ছে দ্বিতীয় প্রণোদনা প্যাকেজ

0
67

নানা দ্বন্দ্ব পেরিয়ে অনেক আলোচনার পর অবশেষে শনিবার রাতে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলায় দ্বিতীয় প্রণোদনা প্যাকেজ বিষয়ে সমঝোতায় পৌঁছায় দুই পক্ষ।ফলে খুব শিগগিরই ৯০ হাজার কোটি ডলারের প্রণোদনা প্যাকেজ পাস হতে চলেছে।

দ্বিতীয় এই প্রণোদনা বিলের বিস্তারিত এখনো জানা যায়নি। তবে এই প্যাকেজের আওতায় বেকারভাতা বাবদ জনপ্রতি সপ্তাহে ৩০০ ডলার, দুর্দশাগ্রস্ত ব্যক্তিদের জনপ্রতি ৬০০ ডলার করে সরাসরি চেক বিতরণ, ক্ষুদ্র ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের জন্য ৩৩ হাজার কোটি ডলারের প্রণোদনা তহবিল এবং স্কুলগুলোর জন্য ৮ হাজার কোটি ডলারের তহবিল থাকছে বলে জানা গেছে। এ ছাড়া করোনা টিকা বিতরণের জন্যও থাকছে কয়েক শ কোটি ডলারের বড় তহবিল।

মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএন জানায়, দ্বিতীয় প্রণোদনা প্যাকেজের বিস্তারিত সম্পর্কে এমনকি সব আইনপ্রণেতাও এখনো জানেন না। এমনকি সরকারি ব্যয় তহবিলের বিস্তারিত সম্পর্কেও সবাই অবহিত নন। সরকার চালু রাখতে হলে আজ রোববার মধ্যরাতের মধ্যেই ১ লাখ ৪০ হাজার কোটি ডলারের সরকারি ব্যয় তহবিল পাস করতে হবে। এখন পর্যন্ত কংগ্রেসের উভয় কক্ষের আইনপ্রণেতাদের অবস্থান দেখে মনে হচ্ছে, সরকার আংশিকভাবেও বন্ধ হোক, তা তাঁরা চান না। তবে যেকোনো আইনপ্রণেতা চাইলে ভোট দিতে বিলম্ব করে পুরো প্রক্রিয়াটি পিছিয়ে দিতে পারেন। আবার নির্বাচনে পরাজয়ের পর থেকে নানা অদ্ভুতুড়ে আচরণ করে চলা ডোনাল্ড ট্রাম্প শেষ পর্যন্ত এই বিলে সাড়া দেন কিনা, তাও দেখার বিষয়।

করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে রীতিমতো নাকাল যুক্তরাষ্ট্র।প্রথম দফায় দেওয়া প্রণোদনা প্যাকেজের অর্থ ফুরিয়ে আসছে। দ্বিতীয় প্যাকেজটি পাস না হলে খুব দ্রুতই তহবিল ফুরিয়ে যাবে। ফলে মার্কিনরা আরও বড় সমস্যার মুখোমুখি হবে। এই অবস্থার মধ্যেও এই প্রণোদনা প্যাকেজ পাস নিয়ে দুই দলের বিরোধের জেরে এক ধরনের অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়।

ক্যাপিটল হিল থেকে বেরিয়ে আসার সময় চাক শুমার সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা (বিল পাসের) একেবারে দ্বারপ্রান্তে।’ তিনি আরও জানান, আজ রোববার মধ্যরাতের আগেই প্রতিনিধি পরিষদ ও সিনেটে বিলটি পাস হবে।

সিনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেতা মিচ ম্যাককনেল বলেন, দ্বিতীয় প্রণোদনা প্যাকেজ পাস আজই হতে পারে।

এখন দুই দলের নেতারা এই সমঝোতার আইনি ভাষা তৈরির কাজটি করছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here