যুক্তরাষ্ট্রে আগামী তিন মাসে করোনায় আরও ২ লাখ মানুষ মারা যাবে

0
31
Medical workers in protective suits tend to coronavirus patients at the intensive care unit of a hospital in Wuhan, China.

যুক্তরাষ্ট্রে আগামী তিন মাসের মধ্যে করোনা মহামারিতে আরও ২ লাখ মার্কিনির মৃত্যুর ভবিষ্যৎবাণী করেছে ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক দল। তারা বলছে, করোনার নতুন ধরন বিরাট শঙ্কা নিয়ে হাজির হয়েছে। এমনকি সবচেয়ে ভালো সম্ভাবনাও বলছে আগামী ১ মের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় মৃত্যুর তালিকায় আরও ২ লাখ মানুষের নাম যুক্ত হবে।

যুক্তরাষ্ট্রে মহামারীতে এরই মধ্যে চার লাখ ৩০ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

যদি সাধারণ মানুষ মাস্ক পরে, জনসমাগম এড়িয়ে চলে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় চলে তাতেও আগামী তিন মাসে ১ লাখ ৩০ হাজারের বেশি মানুষ মারা যাবে।

শুরু থেকেই ভাইরাস বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনা তার ধরন পাল্টাবে। যুক্তরাজ্য ও দক্ষিণ আফ্রিকায় যে নতুন ধরন পাওয়া গেল, তা এত দিন আতঙ্ক ছড়ানো ধরনটি থেকেও ভয়ংকর। এখন যুক্তরাষ্ট্রে করোনার নতুন দুটি অধিক সংক্রমক স্ট্রেইন ছড়িয়ে পড়তে শুরু করেছে এবং অনেকগুলো অঙ্গরাজ্যে এরই মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ড. অ্যান্থনি ফাউসি বলেছেন, ‘এই ভাইরাস নিশ্চিতভাবেই নতুন করে অভিযোজিত হবে এবং এর আরও বিবর্তন ঘটবে।’

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য সরকার থেকে সব জনগণকে দ্রুত টিকার আওতায় আনার চেষ্টা করা হচ্ছে। কিন্তু সব আমেরিকানকে টিকার আওতায় আনতে আগামী গ্রীষ্ম পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।এর আগেই করোনার নতুন ধরনগুলো বিস্তার পেয়ে যাবে। এই নতুন ধরনগুলোর বিরুদ্ধে আবার বিদ্যমান টিকাগুলো কতটা কাজ করবে, তা নিয়েও এক ধরনের সংশয় রয়েছে। এ ক্ষেত্রে মাস্ক পরা, শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ স্বাস্থ্য সতর্কতাগুলো মেনে চলার ওপর জোর দেওয়া হচ্ছে।

নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন অভিষেকের পরপরই প্রথম যে কয়টি নির্বাহী আদেশ দিয়েছেন তার মধ্যে একটি হচ্ছে, সব সরকারি অফিসে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা।

এছাড়া, সব আন্তর্জাতিক ভ্রমণকারীর জন্য কোভিড-১৯ পরীক্ষার সনদ দেখানো বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here