২০শে আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, সকাল ১০:৫৬, শনিবার

  • বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ইউক্রেনকে আরো অস্ত্র পাঠানোর প্রতিশ্রুতি
রিপোর্টারের নাম / ৭২ বার
আপডেট সময় শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২

রুশ বাহিনীর সঙ্গে চলমান যুদ্ধে ইউক্রেনকে জয়ী হতে সাহায্য করতে যুক্তরাষ্ট্রসহ ইউক্রেনের পশ্চিমা মিত্ররা রাশিয়ার নতুন আক্রমণের বিরুদ্ধে সুরক্ষার জন্য আরো অস্ত্র পাঠানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।রুশ বাহিনী পূর্ব ইউক্রেনের দনবাস অঞ্চলে হামলা জোরদার করার পরদিন যুক্তরাষ্ট্র সময় গতকাল মঙ্গলবার জো বাইডেন সাংবাদিকদের এই কথা জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্র ও অন্য মিত্র দেশগুলো ভিডিও কলে অনুষ্ঠিত ৯০ মিনিটের বৈঠকের সময় কিয়েভে আরও আর্টিলারি, অ্যান্টি-ট্যাংক এবং বিমান প্রতিরক্ষা সহায়তা পাঠানোর প্রতিশ্রুতি দেয়। খবর বিবিসির। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি পুতিনের নির্দেশে রাশিয়া ইউক্রেনে হামলা শুরু করার পর থেকে যুক্তরাষ্ট্র ইউক্রেনকে ২৬০ ডলারের অস্ত্র সহায়তা দিয়েছে।

বৈঠকের পর মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগ জানায়, ইউক্রেনের শক্তি বাড়াতে অতিরিক্ত সামরিক বিমান এবং বিমানের যন্ত্রাংশ দেশটিতে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া ইউক্রেনের ক্ষতিগ্রস্ত অন্যান্য সামরিক সরঞ্জাম মেরামতের জন্যও প্রয়োজনীয় যন্ত্রাংশ দেশটিতে পাঠানো হয়েছে।

মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগ আরও জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র নিজে কিয়েভকে কোনো বিমান সরবরাহ করেনি। একইসঙ্গে কোন দেশগুলো ইউক্রেনকে বিমান সরবরাহ করেছে তার বিস্তারিত বিবরণও তারা দেয়নি। অবশ্য, ইউক্রেনের ওপর নো-ফ্লাই জোনের বিকল্প হিসেবে সোভিয়েত-নির্মিত বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা এবং যুদ্ধবিমানগুলো হাতে পেতে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে বরাবরই আবেদন জানিয়ে আসছেন ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম বলছে, পশ্চিমা মিত্রদের সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে গিয়ে মঙ্গলবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন, গত সপ্তাহে ঘোষণা করা ৮০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের সহায়তা প্যাকেজের সমান আকারের আরও একটি সামরিক সহায়তা প্যাকেজ ইউক্রেনকে দেওয়ার পরিকল্পনা করছে যুক্তরাষ্ট্র।

তিনি আরও বলেন, ওয়াশিংটন ইউক্রেনকে আরও কামান ও স্থল যুদ্ধে মোতায়েন করার জন্য ভারী বন্দুক পাঠাবে।

ইউক্রেন বলছে, রাশিয়া পূর্বাঞ্চলে নতুন অভিযান শুরু করায় আত্মরক্ষার জন্য তাদের আরো অস্ত্রের প্রয়োজন। সোমবার রাতে ইউক্রেনের নেতা ভোলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন ‘দনবাসের জন্য যুদ্ধের’ শুরু হয়েছে।

যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন অন্যান্য পশ্চিমা নেতাদের সঙ্গে ওই ভিডিও বৈঠকের পর পার্লামেন্টে বলেছেন, ‘এটি একটি গোলন্দাজ বাহিনীর সংঘর্ষে পরিণত হবে। তাদের (ইউক্রেনের) আরো কামান ও গোলাসহ সমর্থন প্রয়োজন, যা আমরা দেব। ’

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর