শনিবার, ২৮শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১০ই এপ্রিল, ২০২০ ইং
শিরোনাম
  • **আজ পবিত্র শবেবরাত** দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৩ জনের মৃত্যুর কথা নিশ্চিত করেছে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান- আইইডিসিআর। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট ২০ জনের প্রাণহানি ঘটলো**ইয়েমেনে যুদ্ধবিরতির ঘোষণা দিয়েছে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট। বৃহস্পতিবার থেকে এই যুদ্ধ বিরতি কার্যকর হবে বলে জানিয়েছে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের কর্মকর্তারা**ব্যাপক হারে মৃত্যুর ঘটনায় মার্কিন পতাকা অর্ধনমিত রাখার নির্দেশ দিয়েছেন নিউইয়র্কের গভর্নর ক্যুমো** বঙ্গবন্ধুর খুনি মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আব্দুল মাজেদের প্রাণভিক্ষার আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।ফাঁসি যেকোনো দিন**
সোমবার, ডিসেম্বর ৩০, ২০১৯ ৬:৪১ পূর্বাহ্ণ
A- A A+ Print

গণহারে হত্যার রেকর্ডে শীর্ষ যুক্তরাষ্ট্র

ইতিহাসের যে কোনো সময়ের চেয়ে চলতি বছর গণহারে হত্যায় রেকর্ড গড়েছে যুক্তরাষ্ট্র। অপরাধীকে বাদ দিয়ে কোনো হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় চার অথবা ততধিক মানুষ নিহত হলে তাকে গণহারে হত্যা বলে।

বার্তা সংস্থা এপি, ইউএসএ টুডে ও নর্থইস্টার্ন ইউনিভার্সিটির তথ্যমতে, এ বছর যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে এ ধরনের হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে ৪১টি। তাতে মোট ২১১ জনকে হত্যা করা হয়েছে। অপরাধমূলক এসব ঘটনাকে একসঙ্গে প্রকাশ করেছে তারা। খবর বিবিসির।

এ বছর যুক্তরাষ্ট্রে ভয়াবহ যেসব হামলা হয়েছে তার মধ্যে ভার্জিনিয়া বিচ এবং এল পাসোর হামলা সবচেয়ে ভয়াবহ। মে মাসে ভার্জিনিয়া বিচে হামলা হয়। এতে নিহত হন ১২ জন। আগস্টে হামলা হয় এল পাসোতে। এতে নিহত হন ২২ জন।

২০১৯ সালে যে ৪১টি এমন হামলা হয়েছে তার মধ্যে ৩৩টিতে ব্যবহার করা হয়েছে আগ্নেয়াস্ত্র। গবেষকরা বলছেন, রাজ্যভিত্তিক সবচেয়ে বেশি গণহত্যা হয়েছে ক্যালিফোর্নিয়াতে।

২০০৬ সাল থেকে যুক্তরাষ্ট্রে গণহত্যার ডাটা সংরক্ষণ শুরু হয়। কিন্তু গবেষকরা ১৯৭০ এর দশকের দিকেও দৃষ্টি দিয়েছেন। কিন্তু এ সময়ের মধ্যে এত বেশি গণহত্যার কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

এ বছরের পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গণহত্যা হয়েছে ২০০৬ সালে। এ সংখ্যা ৩৮। ২০১৯ সালে সবচেয়ে বেশিসংখ্যক গণহত্যার ঘটনা ঘটলেও এ বছরের তুলনায় বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন ২০১৭ সালে।

২০১৯ সালে নিহতের সংখ্যা ২১১। কিন্তু ২০১৭ সালে হত্যা করা হয়েছে ২২৪ জনকে। ওই বছরটিকে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ গণহত্যার বছর বলে দেখা হয়। ওই বছর লাস ভেগাসে একটি উৎসবে গুলি করে হত্যা করা হয় ৫৯ জনকে।

যুক্তরাষ্ট্রে গণহত্যার অনেক কাহিনীই সংবাদ শিরোনামে আসে না। এর কারণ, এসব হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে পারিবারিক বিরোধ, মাদক ব্যবসা, গ্যাং সন্ত্রাসসহ নানা অপরাধ রয়েছে।

Comments

Comments!

 Natunsokal.com

গণহারে হত্যার রেকর্ডে শীর্ষ যুক্তরাষ্ট্র

সোমবার, ডিসেম্বর ৩০, ২০১৯ ৬:৪১ পূর্বাহ্ণ

ইতিহাসের যে কোনো সময়ের চেয়ে চলতি বছর গণহারে হত্যায় রেকর্ড গড়েছে যুক্তরাষ্ট্র। অপরাধীকে বাদ দিয়ে কোনো হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় চার অথবা ততধিক মানুষ নিহত হলে তাকে গণহারে হত্যা বলে।

বার্তা সংস্থা এপি, ইউএসএ টুডে ও নর্থইস্টার্ন ইউনিভার্সিটির তথ্যমতে, এ বছর যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে এ ধরনের হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে ৪১টি। তাতে মোট ২১১ জনকে হত্যা করা হয়েছে। অপরাধমূলক এসব ঘটনাকে একসঙ্গে প্রকাশ করেছে তারা। খবর বিবিসির।

এ বছর যুক্তরাষ্ট্রে ভয়াবহ যেসব হামলা হয়েছে তার মধ্যে ভার্জিনিয়া বিচ এবং এল পাসোর হামলা সবচেয়ে ভয়াবহ। মে মাসে ভার্জিনিয়া বিচে হামলা হয়। এতে নিহত হন ১২ জন। আগস্টে হামলা হয় এল পাসোতে। এতে নিহত হন ২২ জন।

২০১৯ সালে যে ৪১টি এমন হামলা হয়েছে তার মধ্যে ৩৩টিতে ব্যবহার করা হয়েছে আগ্নেয়াস্ত্র। গবেষকরা বলছেন, রাজ্যভিত্তিক সবচেয়ে বেশি গণহত্যা হয়েছে ক্যালিফোর্নিয়াতে।

২০০৬ সাল থেকে যুক্তরাষ্ট্রে গণহত্যার ডাটা সংরক্ষণ শুরু হয়। কিন্তু গবেষকরা ১৯৭০ এর দশকের দিকেও দৃষ্টি দিয়েছেন। কিন্তু এ সময়ের মধ্যে এত বেশি গণহত্যার কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

এ বছরের পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গণহত্যা হয়েছে ২০০৬ সালে। এ সংখ্যা ৩৮। ২০১৯ সালে সবচেয়ে বেশিসংখ্যক গণহত্যার ঘটনা ঘটলেও এ বছরের তুলনায় বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন ২০১৭ সালে।

২০১৯ সালে নিহতের সংখ্যা ২১১। কিন্তু ২০১৭ সালে হত্যা করা হয়েছে ২২৪ জনকে। ওই বছরটিকে যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ গণহত্যার বছর বলে দেখা হয়। ওই বছর লাস ভেগাসে একটি উৎসবে গুলি করে হত্যা করা হয় ৫৯ জনকে।

যুক্তরাষ্ট্রে গণহত্যার অনেক কাহিনীই সংবাদ শিরোনামে আসে না। এর কারণ, এসব হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে পারিবারিক বিরোধ, মাদক ব্যবসা, গ্যাং সন্ত্রাসসহ নানা অপরাধ রয়েছে।

Please follow and like us:
error0

Comments

comments

X
error